Breaking News
Home / ডিপ্লোমা / ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব।আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং বা স্থাপত্য প্রকৌশল যা বিল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং নামেও পরিচিত মূলত ভবনের নকশা এবং নির্মাণের জন্য প্রকৌশলের নীতি এবং প্রযুক্তি প্রয়োগ করে। স্থাপত্যের পেশাটি নির্মাণ কর্মের সাথে এমনভাবে জড়িত যে এটি পরিকল্পনা থেকে শুরু করে ডিজাইন, তৈরি, ব্যবহার করা এবং রক্ষণাবেক্ষণের সমস্ত উপায়কে প্রভাবিত করে।

 

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব

মানুষ বাস করতে, কাজ করতে, শিখতে, কেনাকাটা করতে বিভিন্ন জায়গায় যায় এবং এসব সুন্দর এবং নিরাপদ স্থানগুলোর নকশা করেন একজন আর্কিটেক্ট। তারা এসব পাবলিক বা প্রাইভেট প্রকল্পে ভবনের ভেতর এবং বাইরের ডিজাইন করেন। একজন স্থপতি একটি একক রুম থেকে সম্পূর্ণ একটি ভবনের পর্যন্ত ডিজাইন করে থাকেন। স্থপতিরা কেবল মূলধারার স্থাপত্য অনুশীলনগুলিতেই জড়িত নন, তারা নগরায়ন পরিকল্পনা ও প্রোপার্টি ডেভ্লপমেন্ট থেকে শুরু করে শিক্ষাদান, আসবাবপত্র নকশা এবং দুর্যোগ বান্ধব আবাসন পরিকল্পনা এসব কিছুতেই কাজ করছেন।

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং

আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং এমন একটি ডিপ্লোমা কোর্স যেখানে প্রকৌশল এবং স্থাপত্য গবেষণাকে একটি একক কোর্সে উপস্থাপন করে শিক্ষার্থিকে এসম্পর্কে একাডেমিক জ্ঞান এবং দক্ষতা বিকাশের জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

ডিপ্লোমা  আর্কিটেকচারে মূলত ফোকাস করা হয় কাঠামোগত নকশা , কম্পিউটার এইডেড ডিজাইন, এবং মডেলিং সহ এই সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় বিভিন্ন দক্ষতার উপর। এটি প্রকল্প ভিত্তিক শিক্ষা যেখানে তত্ত্বের পাশাপাশি তা বাস্তবায়নের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এই কোর্সে শিক্ষার্থীদের ডিজাইন এবং অবকাঠামোগত প্রযুক্তি কেন্দ্রিক ক্যারিয়ারের জন্য প্রস্তুত করা হয়।

আরো দেখুন

 মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা এনভায়রনমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার

আধুনিকীকরণ এবং অগ্রগতির সাথে সাথে আমাদের দেশে অবকাঠামোগত উন্নতি ও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ক্রমবর্ধ্মান জনসংখ্যার সাথে বাড়ছে বাসস্থানের চাহিদা, যার কারণে অদূর ভবিষ্যতে আর্কিটেক্টদের বিশাল চাহিদা তৈরি হবে। তবে ডিপ্লোমা শেষেই এই পেশাতে আসলে বেতন এবং বেনিফিট খুব বেশি হবে না এবং কর্মঘন্টার কোন হিসাব থাকবে না। যাদের জন্মগত শৈল্পিক প্রতিভা এবং সৃজনশীল চিন্তা আছে তাদের জন্য স্থাপত্য গবেষণা একটি সম্ভাবনার ক্ষেত্র। তবে ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং-এর একজন শিক্ষার্থী কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের আগে B.Arch –এর মত উচ্চতর শিক্ষায় আগ্রহী হওয়াটা হবে বুদ্ধিমানের কাজ। তবেই কাজের বাজারে সে আর্কিটেকচার হিসেবে তার প্রকৃত দামটুকু পাবে।

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং কোথায় করবেন

সারা দেশ জুড়ে ৪৯ টি সরকারি প্রতিষ্ঠানে আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং–এ ডিপ্লোমা করার সুযোগ রয়েছে। এছাড়া সিটি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট সহ আরও কিছু বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেও আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং এ ডিপ্লোমা করা যায়।

ভর্তির যোগ্যতা

আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ডিপ্লোমার চার বছর মেয়াদি আট সেমিস্টারের এই কোর্সে এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার পর যে কোন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হওয়া সম্ভব। তবে সরকারি প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড নীতিমালা প্রণয়ন করে থাকে।

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং-এর মান

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সটির মান HSC সার্টিফিকেটের তুলনায় বেশি, তবে একই বিষয়ের বিএসসি ডিগ্রির তুলনায় কম। ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং হল বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এর প্রবেশিকা স্তর।

 আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং কিছু সীমাবদ্ধতা

  • দীর্ঘ সময়ের প্রশিক্ষণ এবং শিক্ষা।
  • গড় বেতন অতটা সন্তোষজনক নয়।
  • ৯-৫টা বাধা অফিস নয়, ডেডলাইন সামনে থাকলে ওভারটাইম করাটা সাধারণ ব্যপার।
  • এই ক্ষেত্রে প্রতি পদই চ্যালেঞ্জিং। টিকে থাকতে হলে কঠোর অনুশীলন এবং নির্ভুলতা প্রয়োজন।
  • অস্থিতিশীল এই অর্থে যে, অর্থনৈতিক মন্দার সময় কাজ এবং আয় কমে যায়।

বিএসসি আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং শেষে আইইবি স্বীকৃত সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে B.Arch বা ব্যাচেলর ইন আর্কিটেকচার ডিগ্রী অর্জন করা যায়। একই বিষয়ে AMIE সার্টিফি্কেট অর্জনেরও সুযোগ আছে।এছাড়া অনেকেই দেশের বাইরেও যাচ্ছে উচ্চশিক্ষা অর্জনের জন্য।

একজন আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারের আয়

সরকারি প্রতিষ্ঠানে এন্ট্রি লেভেলে একজন আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারের ডিপ্লোমাধারী ২৫০০০ টাকা পেতে পারে। বেসরকারি ক্ষেত্রে এটা প্রতিষ্ঠান ভেদে ভিন্ন হয়। তবে অভিজ্ঞতা বাড়লে এবং উচ্চতর সির্টিফিকেট থাকলে পদমর্যাদা ও আয় দুটাই বৃদ্ধি পায়। এছাড়া CAD-এর মত সফটওয়্যারে ডিজাইন করার ভাল দক্ষতা থাকলে শুরুতেও ভাল বেতন পাওয়া সম্ভব।

একজন আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারের দায়িত্ব

ডিপ্লোমা  আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং এমন একটি প্রকৌশল ভিত্তিক বিষয় যা তাত্ত্বিক ধারণাগুলির বাস্তব প্রয়োগের সাথে সম্পর্কিত। একজন আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারকে যে ধরনের দায়িত্ব পালন করতে হয় সেগুলো হল-

  • বিল্ডিং-এর উপকরণ, উপাদান, কাঠামো, নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষনের বাস্তব ও প্রযুক্তিগত প্রয়োগ নিশ্চিত করা।
  • নির্মাণচুক্তিতে মধ্যস্থতা ও তা কার্যকর করায় দক্ষতা।
  • জটিল সমস্যার সমাধানের জন্য কনসালটেন্টদের ব্যক্তিগত দক্ষতার সমন্বয় করা।
  • আর্কিটেক্ট ক্লায়েন্টের সাথে তাদের প্রত্যাশা, প্রকল্পের প্রয়োজনীয় উপাদান এবং বাজেট সম্পর্কে কথা বলে নকশার ধারনা চূড়ান্ত করে।
  • ডিজাইন এবং বিল্ডিং সাইটের শর্ত বিশ্লেষণ করে সেরা লোকেশন নির্ধারণ করে।
  • প্রকল্পটি নির্মাতা ডিজাইন এবং স্পেসিফিকেশন অনুসারে যাতে নির্মান কাজ সম্পন্ন হয় তা নিশ্চিত করতে নির্মাতা এবং অন্যান্য প্রকল্প দলের সদস্যদের সাথে কাজ করে।
  • নির্মাণের ডিজাইন, ডকুমেন্টেশন অনুমোদনের জন্য স্থানীয় নির্মাণ কর্তৃপক্ষের নিকট পেশ করা ও বিল্ডিং অনুমোদন করিয়ে নেয়া।
  • ওয়্যারেন্টি সময়কালে ক্লায়েন্ট এবং নির্মাতার সাথে সম্পর্কিত কোনও প্রাসঙ্গিক সমস্যা বা কাজ ফলো-আপ করা স্থপতির দায়িত্ব।
  • নির্মাণ ক্ষেত্রের জটিল সমস্যা সমাধানে মাধ্যস্থতা করায় দক্ষতা।

আরো দেখুন

ডিপ্লোমা ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

গ্রাফিক্স ডিজাইন ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারদের কর্মক্ষেত্র

একজন আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ডিপ্লোমাধারী প্রকৌশলী বিভিন্ন সরকার ও বেসরকারি যেসমস্ত প্রতিষ্ঠানে জুনিয়র আর্কিটেক্ট হিসেবে কর্মজীবন শুরু করতে পারেন যেমন-

  • রাস্তা ও মহাসড়ক নির্মাণে স্থপতি হিসেবে
  • বিভিন্ন আর্কিটেকচার ও কনস্ট্রাকশন ফার্ম
  • হাউজিং কোম্পানি, রিয়েল এস্টেট কোম্পানি
  • ওয়াসা (WASA), ডিএসএ (DSA), পিডিবি (PDB)
  • নগর ভবনে
  • বন মন্ত্রণালয়
  • ভূমি সম্পত্তির বিকাশকারী সংস্থা

এসব ছাড়াও আর্কিটেকচার ইঞ্জিয়াররা আর যেসব পদে চাকরি পেতে পারেন সেগুলো হল-

  • বিল্ডিং সার্ভেয়ার
  • থিয়েটার / টেলিভিশন / ফিল্ম-এ প্রোডাকশন ম্যানেজার হিসেবে।
  • ঐতিহাসিক ভবন পরিদর্শক / সংরক্ষণ কর্মকর্তা
  • কমার্শিয়াল / রেসিডেনশিয়াল সার্ভেয়ার
  • সরকারি বেসরকারি পলিটেকনিকগুলোতে ইন্সট্রাকটর হিসেবে
  • পরিকল্পনা ও উন্নয়ন জরিপকারী

 

ডি ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজ এর পোর্টালে ভিজিট করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। সকল আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন এবং ফেসবুক পেজে লাইক/ফলো দিয়ে রাখুন।

About E.H Emon

আস-সালামু আলাইকুম। আমার নাম মোঃ ইমদাদুল হক, এবং আমার ডাকনাম ইমন। আমি ঢাকার সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ইলেকট্রনিক্স ডিপার্টমেন্টের একজন শিক্ষার্থী। আমি ডি ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজ এর সহকারী প্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালক। সব সময় আমার ইঞ্জিনিয়ার শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ইনফর্মেশন দিতে অত্যন্ত ভালো লাগে। সেই ভালোলাগা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি।

Check Also

ডিপ্লোমা ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং

ডিপ্লোমা ফুড ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব।গুণগত ও স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যের অবিরাম সরবরাহ নিশ্চিত করতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.