Breaking News
Home / ডিপ্লোমা / ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব।পৃথিবীর একভাগ মাটি আর তিন ভাগ পানি।তাই পানির রাজ্যে দিনের পর দিন ভেসে চলা। সারা বিশ্বের হাজার হাজার আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচল সংস্থা ,নিজ নিজ দেশের জাতীয় পতাকা নিয়ে সিন্দাবাদেরমত বিশাল সমুদ্রর জাহাজগুলোতে দিচ্ছে হাতছানির ডাক।এ শুধু মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারদের ক্ষেত্রে সম্ভব। সমুদ্রের বিশাল বুকে নিজেকে চিফ ইজ্ঞিনিয়ার হিসাবে ক্যারিয়ার গড়ার একমাত্র উপায় মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারিং এ পড়াশুনা করা। তাছাড়া বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ এবং দেশের প্রধান ৩টি সমুদ্র বন্দর দিয়ে সিংহ ভাগ আমদানি রপ্তানি সম্পন্ন হয়। এই বিশাল কর্ম যজ্ঞের মূল বিন্দু দখল করে রেখেছে মেরিনরা ।

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব

সারা বিশ্বে যেকয়টি পেশার চাহিদা রয়েছে তার মধ্যে মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারিং অন্যতম। অনেকে মনে করেন মেরিটাইম পেশা অর্থ মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারিং।কিন্তু তা নয়। একজন ডিপ্লোমা মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারদের জল ও স্থল দুটি সেক্টরেই কর্মক্ষেত্রে রয়েছে। যেমন মেরিটিইম লজিস্টিক ,শিপিং এন্ড শিপিং ম্যানেজমেন্ট, পাওয়ার প্লান্ট , সিমেন্ট ফ্যাক্টরি ,BIWTA ইত্যাদি ।

 মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং Challenging এবং অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ একটি পেশা। এই পেশাতে জাহাজের ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে অল্প সময়ে আত্ননির্ভরশীল হয়ে উঠতে পারে এবং দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারে। এই কোর্সটি মেকানিক্যাল, ইলেকট্রিক্যাল, থার্মাল এবং কন্ট্রোল ইঞ্জিনিয়ারিং এর অনুরুপ বলে একে ‘ইন্ট্রিগ্রেটেড ইঞ্জিনিয়ারিং’ বলা হয়। একজন ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারের একই সঙ্গে জল ও স্থল দুটি সেক্টরেই কর্মদক্ষতার সুযোগ রয়েছে। বর্তমান উন্নত বিশ্বে মেরিন ইঞ্জিনিয়ার পদবীকে একটি সম্মানজনক পদ হিসেবে অভিহিত করা হয়। একজন ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ার সল্পসময়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত নাবিক হিসেবে গড়ে তুলতে পারে।

আরো দেখুন

ডিপ্লোমা ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

গ্রাফিক্স ডিজাইন ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার

ডিপ্লোমা মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারদের ক্যারিয়ার গড়তে অনেক ক্ষেত্র রয়েছে। যেমন _সল্প খরচে সিঙ্গাপুর ,জার্মানি ,অস্টেলিয়া ,কাতার, দুবাই, ইত্যাদি দেশে চাকরির পাশাপাশি উচ্চ শিক্ষাও নিতে পারবেন।বাংলাদেশ নেভি ,BRWTA,BRWTNE ইত্যাদি ।

স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানে ক্যারিয়ার গড়ায় রয়েছে সুবর্ণ সুযোগ। দেশি বিদেশী জাহাজে নাবিকসহ ভালো মানের চাকরী রয়েছে ।এ ছাড়াও পাওয়ার প্লান্ট,সিমেন্ট ফ্যাক্টরি, জাহাজ, ফিশিং ভেসেল, ইংল্যান্ড ভেসেল, ট্রাঙ্কার, শিপ মেইনটান্স, সামুদ্রিক জাহাজ ,ডক ইত্যাদি স্থানে চাকরি করতে পারবেন। মোটকথা মেরিন ইজ্ঞিনিয়ারদের রয়েছে বহুমুখী উজ্জ্বল ক্যারিয়ারের হাতছানি।মেরিন থেকে ডিপ্লোমা ইন ইজ্ঞিনিয়ারিং পাশ করা একজন শিক্ষার্থী হয় ২য় শ্রেণীর পদমর্যাদা সম্পন্ন ব্যক্তি ।

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং কোথায় করবেন

দেশের মোট দুটি সরকারি ও একাধিক বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনা করানো হয়।
.
সরকারি ইন্সটিটিউট-
1. বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি, নারায়ণগঞ্জ ও
2. পতেঙ্গা নেভাল একাডেমি, চট্টগ্রাম।
.
বেসরকারি ইন্সটিটিউট-
1. ইন্সটিটিউট অব রয়েল মেরিন একাডেমি, ২৪২/২ পশ্চিম শেওড়াপাড়া, বেগম রোকেয়া সরণি, ঢাকা।
2. সাইক ইন্সটিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি, বাড়ি-১, রোড-২, ব্লক-বি, মিরপুর-৬, ঢাকা-১২১৬।

ভর্তির যোগ্যতা

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ের ওপর সরকারি ও বেসরকারি প্রতেষ্ঠানে রয়েছে ৪ বছর ও দু’বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্স। সব প্রতষ্ঠিানে ভর্তি হতে চাইলে প্রার্থীকে এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় যে কোনো বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হয়ে ভর্তির আবদেন করতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। উল্লেখ্য, একজন শিক্ষার্থী পরপর তিন বছর ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। ব্যতিক্রম পতেঙ্গা নেভাল একাডেমিতে এইচএসসি বা আলিম পরবর্তী শিক্ষার্থীরা কেবল আবেদন করতে পারবে।
.
বাংলাদেশ মেরিন একাডেমীতে আবেদনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাস করতে হবে। উভয় পরীক্ষায় আলাদাভাবে ৩.৫০ জিপিএ থাকতে হবে। এ ছাড়া উচ্চ মাধ্যমিকের পদার্থ ও গণিত বিষয়ে আলাদাভাবে ৩.৫০ জিপিএ থাকতে হবে। ইংরেজি বিষয়ে কমপক্ষে ৩.০০ জিপিএ অথবা আইইএলটিএস স্কোর হতে হবে ৫.৫।

এ ছাড়া ক্যাডেট হওয়ার জন্য শারীরিক সক্ষমতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। মেরিন ক্যাডেট হিসেবে ছেলেদের কমপক্ষে ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি ও মেয়েদের ৫ ফুট ২ ইঞ্চি হতে হবে। এই প্রতিষ্ঠানে দৃষ্টিশক্তির ক্ষেত্রেও কিছু নিয়ম মেনে ক্যাডেট ভর্তি করা হয়। মেরিন ক্যাপ্টেন হওয়ার জন্য ৬/৬ এবং মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে দৃষ্টিশক্তি ৬/১৮ হতে হবে। এসবের বাইরে আবেদনকারীকে অবশ্যই সাঁতার জানতে হবে।

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং

 মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং-এর মান

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সটির মান HSC সার্টিফিকেটের তুলনায় বেশি, তবে একই বিষয়ের বিএসসি ডিগ্রির তুলনায় কম। ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং হল বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এর প্রবেশিকা স্তর।

বিএসসি মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং

  • B.Sc in Mechanical Engineering (Bangladesh)
  • Electronics and Electrical Engineering B.Sc (Bangladesh)
  • B.Sc in Aerospace Engineering (Abroad)
  • Avionics Engineering B.Sc (Abroad)
  • B.Sc in Marine Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Shipbuilding Engineering (Abroad)

একজন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারের দায়িত্ব

একটি জাহাজের প্রতিটি পদমর্যাদার ইঞ্জিনিয়ারদের রক্ষণাবেক্ষণ ও পর্যবেক্ষণের উদ্দেশ্যে নির্দিষ্ট যন্ত্রপাতি এবং সিস্টেম বরাদ্দ করা হয়। এসব যান্ত্রিক ব্যবস্থা মনিটরিং এবং রক্ষণাবেক্ষণ করাই তাদের মূল দায়িত্ব। একজন প্রকৌশলী এটি নিশ্চিত করেন যে তার নিয়ন্ত্রণের অধীনে সকল যন্ত্রপাতি সঠিকভাবে চলছে কিনা।

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারদের কর্মক্ষেত্র

  • স্বনামধন্য দেশী ও বিদেশী বানিজ্যিক ও বিলাসবহুল জাহাজে ক্যাডেট অথবা জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার পদবীতে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • দেশি-বিদেশি পাওয়ার প্ল্যান্ট, হেভি মেশিন হাউজ সহ যে সকল জায়গাতে ইঞ্জিনের ব্যবহার রয়েছে সেখানে ইঞ্জিনিয়ার পদবীতে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে ৪র্থ-আর্টিফিশার পদে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • দেশি-বিদেশি সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সেফটি অফিসার হিসেবে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • ওয়েল রিগ, গ্যাস প্ল্যান্ট, কোলমাইন ইত্যাদিতে সহজেই যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • বিভিন্ন ধরনের শিপইয়ার্ড ও ডকইয়ার্ড সমূহে ইঞ্জিনিয়ার আথবা ম্যানেজিং সেক্টর সমূহে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • বিভিন্ন ধরনের সার্ভেয়িং কোম্পানি গুলোতে মেরিন সার্ভেয়ার পদে যোগদান করতে পারেন।
  • দেশীয় সরকারি প্রতিষ্ঠান যেমনঃ BIWTC, BIWTA, তিতাশ গ্যাস, পেট্রোবাংলা, খুলনা শিপইয়ার্ড, ফায়ার সার্ভিস, DEW ইত্যাদি প্রতিষ্ঠান সহ আরো অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানে উপ-সহকারি প্রকৌশলী পদে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।
  • সমুদ্র বন্দর এবং নদী বন্দর সমূহে বন্দর ব্যাবস্থাপক পদে চাকরির সুযোগ রয়েছে।
  • সরকারি এবং বেসরকারি মেরিন টেকনোলজি পলিটেকনিক ও ইন্সটিটিউটে ইন্সট্রাক্টর ও জুনিয়র ইন্সট্রাক্টর পদে যোগদানের সুযোগ রয়েছে।

আরো দেখুন

ডিপ্লোমা আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

 মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা এনভায়রনমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারদের আয়

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনার পর বেকার থাকা বা কাজ না পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। এখানে আয়-রোজগারের বিষয়টা প্রতিষ্ঠানভেদে হয়ে থাকে। অনেকটা দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার ওপর নির্ভর করে। নারায়ণগঞ্জ মেরিন ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ এম আকরাম আলী জানান, একজন ছাত্র পেশাগত জীবনে বিদেশী প্রতিষ্ঠানে ২০ হাজার থেকে ৪ লাখ টাকা আয় করতে পারবে ও দেশি জাহাজ বা অন্য প্রতিষ্ঠানে ১৫ হাজার থেকে আড়াই লাখ টাকা আয় করতে পারে। বিদেশী জাহাজে চাকরিরত অফিসার মাসুদ আহমেদ জানান, এখানে থাকা-খাওয়া ও বেতন সবকিছুই মানসম্মত।

ডি ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজ এর পোর্টালে ভিজিট করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। সকল আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন এবং ফেসবুক পেজে লাইক/ফলো দিয়ে রাখুন।

About E.H Emon

আস-সালামু আলাইকুম। আমার নাম মোঃ ইমদাদুল হক, এবং আমার ডাকনাম ইমন। আমি ঢাকার সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ইলেকট্রনিক্স ডিপার্টমেন্টের একজন শিক্ষার্থী। আমি ডি ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজ এর সহকারী প্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালক। সব সময় আমার ইঞ্জিনিয়ার শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ইনফর্মেশন দিতে অত্যন্ত ভালো লাগে। সেই ভালোলাগা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি।

Check Also

ডিপ্লোমা ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং

ডিপ্লোমা ফুড ইঞ্জিনিয়ারিংঃ ক্যারিয়ার, উচ্চ শিক্ষা, পেশাগত দায়িত্ব

ডিপ্লোমা ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যারিয়ার উচ্চ শিক্ষা পেশাগত দায়িত্ব।গুণগত ও স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যের অবিরাম সরবরাহ নিশ্চিত করতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.